কে বেশি গুরুত্বপূর্ণ — ক্রেতা নাকি ভোক্তা ?
ক্রেতা

কে বেশি গুরুত্বপূর্ণ — ক্রেতা নাকি ভোক্তা ?

Summary:

Wafer cake sweet roll cheesecake ice cream gingerbread sweet. Wafer gingerbread apple pie cotton candy jelly. Toffee oat cake oat cake toffee tootsie roll muffin sugar plum.

গত ঈদে বাড়ি গিয়ে বাজারে আমার বড় ভাইয়ের দোকানে বসে আছি। বেশ ক’জন ক্রেতা একসাথে ঢুকলো পরিবারের সবচেয়ে ছোট্ট সদস্যের (ভোক্তার) জন্য ড্রেস কিনতে। অনেকগুলোর মধ্য থেকে বাবা-মা ও দাদী একটা সেট খুব পছন্দ করল। বাচ্চাটা তেমন সন্তুষ্ট হতে পারছিল না। অনিচ্ছা সত্ত্বেও অন্যদের চাপাচাপিতে সেটা ট্রায়াল দেওয়ানো হলো। সে পোশাকটা পরামাত্রই এমন ভাব শুরু করলো যেন তার খুব অস্বস্তি হচ্ছে। ফলে অন্যেরা দ্রুত সেটা খুলে নিল।  অন্য দোকানে তার পছন্দের পোশাক পাওয়ার আশায় তারা দোকান থেকে বেরিয়ে গেল। নিশ্চয়ই আপনাদের জানতে ইচ্ছে করছে– মেয়েটার বয়স কতো? আমার ধারণা– আড়াই থেকে তিনের মধ্যে! কারণ তখনো সে বাক্যগুলো ঠিকমতো গুছিয়ে বলা শেখেনি!

পুরো ঘটনাটি দেখে আমাদের ছোটবেলা ঈদের জামা পাওয়ার ধরণ খেয়াল হলো। আমাদের সর্বোচ্চ ভূমিকা ছিল দর্জির কাছে গিয়ে তার নির্দেশনা মোতাবেক হাত ওপরে তোলা, ঘুরে দাঁড়ানো ইত্যাদি। কোন কাপড়ের, কী ডিজাইনের, ঝুল কেমন, ফুলহাতা নাকি হাফহাতা এসকল বিষয়ে তখন আমাদের মতামতটা জানতে চাওয়া হতো না। সাহস করে বলতেও পারতাম না! হাইস্কুল পর্যন্ত প্রায় এমনই গেছে। আর তৈরি পোশাকের ক্ষেত্রে বড়োরা যা এনে দিত–তাতেই বেজায় খুশি থাকতাম। সেগুলোর কোনো বৈশিষ্ট্য নিয়েই প্রশ্ন তোলার প্রয়োজন কখনো বোধ হয়নি, সুযোগও ছিল না। অথচ আজ মুখে ঠিকমতো কথাই ফুটেনি সেই বাচ্চাও সিদ্ধান্ত নিচ্ছে যে, কোন পণ্যটা কেনা হবে আর কোনটা নয়!

বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

একসময় ক্রেতার ক্ষমতায়ন বিষয়ে আমরা বেশ কথা বলতাম। তখন সিআরএম (Customer Relationship Management) তত্ত্ব বেশ জোরালো ছিল। তাদের দরকষাকষির ক্ষমতা যে লাগামহীনভাবে বাড়ছে সেটাও সহজেই অনুমেয়। কিন্তু এখন ভোক্তারা তাদের চেয়েও শক্তিশালী ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে। পয়সা যেই দিক না কেনো– যে ভোগ করবে তার মতই চূড়ান্ত বলে গণ্য হচ্ছে।

রেস্টুরেন্টে গিয়ে যে বন্ধু ট্রিট দেয় তার কথামতোই কী খাবারের অর্ডার দেওয়া হয়? কিংবা পার্কে কোন রাইডে চড়া হবে তার সিদ্ধান্ত নেয় কী মা-বাবা নাকি বাচ্চারা? জুস, চিপস বা ফাস্টফুড শরীরের জন্য ভয়াবহ খারাপ জানার পরেও কি বাবা-মা হাসিমুখে পকেট থেকে পয়সা বের করে সেগুলো কিনে দেন না? বাসায় অসংখ্য খেলনা অব্যবহৃত থাকার পরেও কি ক্রেতারা নতুন খেলনা কিনতে বাধ্য হচ্ছেন না?

অন্যভাবে বলা যায়, শিশুখাদ্য হিসাবে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের দুধের ব্যবহার ক্রমাগতভাবে বাড়ছে। কোনো ব্র্যান্ডের দুধ যদি বাচ্চা সহজে খায়, অন্যটি খাওয়ানোর সময় বমি করে বা অস্বস্তি হয়– তখন অভিভাবক নিজের অজান্তেই সেই ব্র্যান্ডেরটা কেনে যেটা খাওয়ানো সহজ হয়। পুষ্টিগুণ বা অন্যান্য বৈশিষ্ট্য তখন বিবেচনায় নেওয়ার সুযোগ থাকে না। তাই ভোক্তা আপাতদৃষ্টিতে যত দুর্বলই হোক না কেন, মুখ ফুটে কথা বলতে না শিখুক– তবুও তার পছন্দ বা মতই প্রাধান্য পাচ্ছে। তাই আসল ক্ষমতায়ন হয়েছে ভোক্তার, ক্রেতার নয়। আপনিও যে পণ্যের বিক্রেতা সেক্ষেত্রেও দেখুন চূড়ান্ত ভোক্তা বা ব্যবহারকারী যেটা পছন্দ করে সেটাই কেনা হয়।

ক্রেতা বনাম ভোক্তা

একজন বিক্রয়কর্মীকে অবশ্যই বুঝতে হয় যে, প্রকৃত সিদ্ধান্তগ্রহণকারী কে। তাইতো দক্ষ সেলসম্যানেরা শোরুমে আগত ভাইকে (ক্রেতা) পাত্তা না দিলেও ভাবীর সমাদর করতে কোনো ত্রুটি রাখে না। রাস্তার ধারে বেলুন বিক্রেতারা আপনার চোখ ফাঁকি দিয়ে ঠিকই বাচ্চার সাথে কানেক্ট করে। কারণ সে জানে তাকে কনভিন্স করতে পারলেই যথেষ্ঠ। তবে অনেকক্ষেত্রে এই দুইপক্ষের বাইরেও অন্যদের অনুপ্রবেশ ঘটে। বিশেষত যেখানে টেকনিক্যাল জ্ঞান বা প্রক্রিয়াগত ব্যাপার আছে সেখানে অপিনিয়ন লিডার ভিন্ন ভিন্ন হয়। পারস্পারিক আলোচনা ও আচরণে প্রকৃত প্রভাববিস্তারকারী ব্যক্তিকে দ্রুত চিহ্নিত করতে শেখাটা–বিক্রয় পেশায় সফলতার জন্য অপরিহার্য এক গুণ। দিন যত যাচ্ছে, এর প্রয়োজনীয়তা ততই বাড়ছে।

উৎস: লেখকের ‘ফেইলিওর ইন সেলস’ বই থেকে সংকলিত।

ভালো লাগলে বন্ধুদের বলুন, মন্দ লাগলে আমাদের জানান

Leave a Reply

Follow Me

আপনার মস্তিষ্কের মালিকানা বুঝে নিন…

মস্তিষ্কের মালিকানা
error

করোনা কিন্তু করুণা করে না!!!

mahamid.biz@gmail.com
WhatsApp